গলাচিপায় একটি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নিয়ে চলছে দুই গ্রুপের টানাহ্যাঁচড়া



৭১বিডি২৪ডটকম ॥ রিপন বিশ্বাস;


গলাচিপায় একটি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নিয়ে চলছে টানাহ্যাঁচড়া


গলাচিপা (পটুয়াখালী): পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার বকুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ছোনখোলা গ্রামের দক্ষিন পূর্ব ছোনখোলা বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম ব্যবহার করে জাল কমিটি ও জাল শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে প্রশ্নপত্র ছারিয়েছে স্থানীয় কুচক্রি মহল। এমন অভিযোগ করেছেন দক্ষিন পূর্ব ছোনখোলা বেসরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুর রহমান।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায় মোঃ নূর আলম বেপারী ও আঃ জব্বার বেপারী গত ২৬-০১-১৯৯৫ ইং সলে ছোনখোলা বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে জমির দলিল রেজিষ্ট্রি করে দেয়। এরপর থেকে দীর্ঘ কয়েক বছর যাবত স্কুলের কর্যক্রম চালিয়ে আসছি। এমত অবস্থায় এলাকার কিছু কুচক্রি সার্থনেসি মহল যখন দেখলো স্কুলটি জাতীয় করনের জন্য অগ্রসর হচ্ছে তখন তারা স্কুলের নামে ২০১৭ ইং সালের সেপ্টেম্বর মাসে আবুল বেপারীকে দিয়ে ৬ সতাংশো জমি দান করান। এরপর থেকে জাল কমিটি সাজিয়ে জাল শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে ফাইল নিয়ে বিভিন্ন দপ্তরে দিচ্ছে।

এ ব্যপারে প্রধান শিক্ষক আবদুর রহমান কুচক্রি মহলের অধিনায়ক উত্তর লামনা সঃ প্রাঃ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ রফিউল্লাহ নেছারী, উত্তর লামনা সঃ প্রাঃ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ ইলিয়াস চৌধুরী, মোঃ মজিবর সিকদার, মোঃ আবুল হোসেন বেপারী ও মোঃ নুরজামাল বেপারী নাম উল্লেখ করে, গত ১৩-১২-২০১৭ইং তারিখ গলাচিপা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এর বরাবর, গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর বরাবর, গলাচিপা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের বরাবর একটি করে দরখাস্ত দায়ের করে। উক্ত দরখাস্তে গলাচিপা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার উপজেলা প্রথমিক শিক্ষা অফিসার কে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার নিদের্শ দেন।

এ বিষয়ে গলাচিপা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আঃ ছাত্তার জমাদ্দার এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ব্যপারে অভিযুক্ত দের কাছে স্কুল করার ব্যপারে জানতে চাইলে তারা কোন সৎ উত্তর না দিয়ে অন্যান্য প্রশ্ন এরিয়ে যান।

সর্বশেষ সংবাদ